শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪, ১১:৩৬ অপরাহ্ন

শান্তিপুর্ণভাবে নির্বাচন উপহার দিতে লোহাগাড়া থানার ওসি`র  ভূমিকা প্রশংসনীয় 

 

রায়হান সিকদার,লোহাগাড়া(চট্টগ্রাম) প্রতিনিধিঃ

গেল ২০২৩ সালে ২৮শে অক্টোবর থেকে শুরু হয়েছিল বিএনপিসহ সমমনা দলের ডাকা হরতাল,অবরোধ ও অন্যান্য কর্মসূচি। বিএনপির ডাকা টানা কর্মসূচিগুলোকে প্রতিরোধ করতে কঠোর অবস্থানে ছিল লোহাগাড়া থানা পুলিশ। বিএনপির ডাকা হরতাল,অবরোধসহ নানা কর্মসূচি গুলো, ককটেল বিস্ফোরন, নাশকতা ও সহিংসতা মোকাবেলায় নিরলসভাবে কাজ করেছেন লোহাগাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ রাশেদুল ইসলাম। পরবর্তীতে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন কর্তৃক ৭ জানুয়ারী দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন অনুষ্টানের তফসিল ঘোষণা করা হয়। তফসিল ঘোষণার পর থেকে শুরু হয় আবারও টানা কর্মসূচি।অবরোধ,হরতালসহ বিভিন্ন ধরণের সহিংসতা মোকাবেলায় কঠোর অবস্থানে ছিল লোহাগাড়া থানা পুলিশ। এসব সহিংসতা প্রতিরোধে লোহাগাড়া থানার ওসি মোঃ রাশেদুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশের পৃথক পৃথক টিম কাজ করে প্রশংসীত হয়েছেন সর্বমহলে। বাংলাদেশের প্রায়ই থানায় হরতাল-অবরোধ চলাকালীন সময়ে গাড়ি পুড়িয়ে দেওয়ার মতো সহিংস ঘটনা ঘটলেও এক্ষেত্রে ব্যতিক্রম ছিল দেশের ঝুকিপূর্ণ উপজেলার তালিকায় শীর্ষে থাকা লোহাগাড়া। বলা যায় এক্ষেত্র ওসি রাশেদুল ইসলাম অত্যন্ত দক্ষতা, বুদ্ধিমত্তা এবং সাহসিকতার সাথে সহিংস কর্মকান্ডকে দমিয়ে রেখেছিলেন।২০২৪ সালে ৭ জানুয়ারী দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন সম্পূর্ণ করা হয়। সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলছিল।ভোটাররা ভোট কেন্দ্রে গিয়ে নির্বিঘ্নে তাদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে সেটি নিশ্চিত করতে উপজেলা প্রশাসন,থানা প্রশাসন, জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এর নেতৃত্বে পুলিশ, আনসার, এপিবিএন, র‍্যাব, বিজিবি ও সেনাবাহিনীর টিম কাজ করেছে। পাশাপাশি গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিনিধিরাও মাঠে কাজ করেছে।দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনকে সুন্দর, সু্ষ্ঠু, নিরপেক্ষ এবং শান্তিপূর্ণভাবে সম্পুর্ণ করতে নিরলসভাবে কাজ করেছেন লোহাগাড়া থানার ওসি মোঃ রাশেদুল ইসলাম।এ বিষয়ে দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক বিজয় কুমার বড়ুয়া জানান, নির্বাচনে কোন ধরণের সহিংসতা হয়নি। নির্বাচনের পরিবেশ কে সুন্দর ও সুশৃঙ্খল রাখতে ওসির ভূমিকা প্রশংসনীয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র নেতৃত্বে স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মানের জন্য আমরা সবাই এগিয়ে যাবো।লোহাগাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সালাহ উদ্দিন হিরু জানান, এবারে নির্বাচন ঐতিহাসিক নির্বাচন।স্বরণকালের সেরা নির্বাচন। উৎসবমুখর পরিবেশে এ নির্বাচনের কারণে প্রশাসনের প্রতি সাধারণ মানুষের আস্থা বৃদ্ধি পেয়েছে। সুষ্ঠু নির্বাচন উপহার দেওয়ায় উপজেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে সাতকানিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শিবলী নোমান,লোহাগাড়া থানার ওসি রাশেদুল ইসলাম সহ সংশ্লিষ্ঠ পুলিশ সদস্যদের কে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি।লোহাগাড়া প্রেস ক্লাব সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম জানান, আমরা সুন্দর নির্বাচন দেখতে পেয়েছি। ওসি সাহেব লোহাগাড়ায় যোগদান করার পর থেকেই আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে কাজ করে যাচ্ছেন। তার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে কারণে এ নির্বাচন অবাধ,সুষ্ঠ হয়েছে।আধুনগর ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ নাজিম উদ্দিন জানান, লোহাগাড়ায় এবারে নির্বাচনে ইতিহাস সৃষ্ঠি করেছে।সাধারণ মানুষ লাইন ধরে ভোট দিতে পেরেছে। ওসি রাশেদ ভাই আমাদেরকে সুন্দর নির্বাচন উপহার দিয়েছে। এজন্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি।লোহাগাড়া উপজেলা তাঁতীলীগের সদস্য সচিব শিল্পপতি জাহাঙ্গীর আলম জানান,নির্বাচনকে অবাধ, নিরপক্ষভাবে সম্পন্ন করতে ওসির ভূমিকা ছিল প্রশংসনীয়।লোহাগাড়া থানার ওসি মোঃ রাশেদুল ইসলাম জানান, ওসি মোঃ রাশেদুল ইসলাম জানান,দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনকে অবাধ, নিরপেক্ষভাবে উপহার দিতে আমরা পুলিশ প্রশাসন কঠোর অবস্থানে ছিলাম। সাধারণ মানুষ কেন্দ্র গিয়ে নির্ভয়ে, নিরাপদে ভোট দিয়ে আসতে পেরেছে। মাননীয় পুলিশ সুপার মহোদয়, সাতকানিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শিবলী নোমান মহোদয়ের নির্দেশনায় লোহাগাড়ায় যেকোন ধরণের নাশকতা ও সহিংসতার ঘটনা মোকাবেলা করেছি। একটি সুন্দর, অবাধ নির্বাচনে উপহার দিয়েছি। আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে সকলের সহযোগীতা পেয়ে সকলকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুক পেইজ