শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ০১:০০ পূর্বাহ্ন

ভারতকে হারিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশ

সিএসপি ডেস্কঃ

ভারতকে ৩-১ গোলে হারিয়ে বাংলাদেশ সাফ অনূর্ধ্ব-১৬ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে।

শুরুতে গোল করে বাংলাদেশ এগিয়ে যায়। ভারত সমতায় ফিরে ম্যাচ নিজেদের দিকে নেয়। তবে শেষ ১২ মিনিটে সাইফুল বারী টিটুর দল আবারও ঝলক দেখায়। আরও দুই গোল আদায় করে।

দুই ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে বাংলাদেশ প্রথম দল হিসেবে ফাইনাল নিশ্চিত করেছে। শেষ ম্যাচে ৮ মার্চ ভুটানের বিপক্ষে পয়েন্ট হারালেও তাতে ফাইনাল নিয়ে কোনও অনিশ্চয়তা থাকবে না।

মঙ্গলবার (৫ মার্চ) বিকালে কাঠমান্ডুর আনফা কমপ্লেক্সে বাংলাদেশের প্রথম গোল পেতে বেশি সময় লাগেনি।

ম্যাচঘড়ির ৯ মিনিটে লাল-সবুজ দল এগিয়ে যায়, অনেকটা ভাগ্যপ্রসূত। আলপি আক্তারের দূরপাল্লার শট গোলকিপার সুরাজমুনি কুমারি লাফিয়ে উঠে ধরার চেষ্টা করলেও বল ছুটে গিয়ে জড়িয়ে যায় জালে।

এক গোলে পিছিয়ে থেকে ভারত ম্যাচে ফেরার চেষ্টা করে। ১৮ মিনিটে ভারতের লংগাজাম নিরার শট গোলকিপার তালুবন্দি করেন।

 

বিরতির পরও ভারত দাপট দেখাতে থাকে। ৫২ মিনিটে জটলা থেকে অর্পিতা ঠিকমতো ক্লিয়ার করতে পারেননি, বক্সের প্রান্ত থেকে সেতার রানির ডান পায়ের জোরালো শট পোস্টে লেগে ফিরে আসে। ৫৫ মিনিটে ভারত ঠিকই সমতায় ফেরে। ডান প্রান্তে প্রায় বাইলাইন থেকে আনুষ্কা কুমারির সরাসরি শট দূরের পোস্টের ভেতরে লেগে গোল হয়।

৬৬ মিনিটে বাংলাদেশ আক্রমণে আসে। সেটপিস থেকে ভালো সুযোগ পায়। আলপির ফ্রি-কিকে বক্সের ভেতরে একজনের হেড গোলকিপার কোনোমতে সেভ করেন। ৭১ মিনিটে ভারতের আনুষ্কার শট দূরের পোস্ট দিয়ে যায়।

 

বাংলাদেশ শেষ ১২ মিনিটে প্রতিপক্ষকে চাপে রেখে। ৭৮ মিনিটে দারুণ গোল করে বাংলাদেশকে এগিয়ে নেন সুরভী আকন্দ প্রীতি। মধ্যমাঠ থেকে বল নিয়ে দুই ডিফেন্ডারকে গতিতে পরাস্ত করে বক্সে ঢুকে গোলকিপারের পাশ দিয়ে লাল-সবুজ দলের মুখে আবারও হাসি ফিরিয়ে আনেন।

৮৯ মিনিটে বাংলাদেশ তৃতীয় গোল করে ভারতকে ম্যাচ থেকে পুরোপুরি ছিটকে দেয়। অনন্যা মুরমুর কর্নারে গোলকিপার ঠিকমতো ক্লিয়ার করতে পারেনি, বল চলে আসে পেছনে। সেখানে অন্য ডিফেন্ডারদের মাঝ থেকে অর্পিতা বিশ্বাস আলতো শটে জাল কাঁপান।

 

রেফারির শেষ বাঁশি বাজতেই প্রীতিদের উল্লাস শুরু হয়।

সিএসপি/বিআরসি


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুক পেইজ